Bdnews Live24 | logo

২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

এটা তো ধাপ্পাবাজির মেশিন: ইভিএম নিয়ে জাফরুল্লাহ

প্রকাশিত : জুলাই ০৫, ২০২২, ০৩:১৪

এটা তো ধাপ্পাবাজির মেশিন: ইভিএম নিয়ে জাফরুল্লাহ

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনকে (ইভিএম) ধাপ্পাবাজির মেশিন আখ্যায়িত করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী।‌ এবার জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম দিয়ে ‘ভানুমতির খেলা’ চলবে না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।‌

আজ সোমবার বিকেলে ‘দেশের চলমান রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে করণীয়’ শিরোনামে একটি আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। রাজধানীর পুরানা পল্টনে গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সভার আয়োজন করা হয়।

সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে সরকারের এত ভয় কেন– এমন প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আপনি চান ইভিএম।‌ এটা তো ধাপ্পাবাজির মেশিন। এত উন্নয়ন করেছেন, তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে ভয় পাচ্ছেন কেন? বারবার কলা চুরি করা যাবে না। এখন আপনাকে মাঠে নামতে হবে। নির্বাচনের মাঠে খেলতে হবে।’

নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতা ছাড়ার আহ্বান জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

আলোচনা সভায় অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ মহাসংকটের মধ্যে আছে। এই সংকট উত্তরণের একমাত্র উপায় সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন। এই সুষ্ঠু নির্বাচন করার দায়িত্ব সরকারের। তবে দেখা যাচ্ছে এবারও যেনতেনভাবে নির্বাচন করার জন্য সরকার কাজ করছে।

সরকার কারও মতামতের তোয়াক্কা না করে নিজেদের মতো কাজ করে চলছে বলে অভিযোগ করেন দিলারা চৌধুরী। তিনি বলেন, ‌এ জন্য সবাইকে বুঝতে হবে সামনে বাঁচা–মরার লড়াই। এই লড়াইয়ে হেরে গেলে ভবিষ্যতে আরও বড় বিপদ আছে। এ জন্য সবাইকে যুগপৎ আন্দোলন করতে হবে। তবে এটিও খেয়াল রাখতে হবে, ওই আন্দোলনে যাতে সহিংসতা না হয়।

আলোচনায় অংশ নিয়ে নির্বাচন হবে কি হবে না, তা নিয়ে চিন্তা না করতে রাজনৈতিক দলের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান কবি–লেখক ফরহাদ মজহার। এই পরামর্শের পক্ষে যুক্তি দিয়ে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন আপনাদের হাতে নাই। কখনোই এটা আপনাদের হাতে ছিল না। যাঁরা মনে করেন নির্বাচন হবে, তখন নির্বাচন করবেন। এখন সময় নষ্ট করবেন না। আগামীর বাংলাদেশ কীভাবে গড়বেন, সেটা নিয়ে ভাবুন। কাজ করুন।’

ফরহাদ মজহার বলেন, যখন তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা নিয়ে সব দল আন্দোলন করেছে, তখন তিনি একা এর বিরুদ্ধে ছিলেন। তাঁর মতে, তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে জনগণের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে। কারণ ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, ‘আমরা একটা রাষ্ট্র গঠন করতে পারিনি, একটা শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন করতে পারিনি, সংবিধান তৈরি করতে পারিনি, জোড়াতালি দিয়ে চলছি। এর মূল্য আমাদের দিতে হচ্ছে।’

তৃতীয় শক্তি বলে কিছু নেই বলে মনে করেন ফরহাদ মজহার। তিনি বলেন, ‘গণশক্তি আছে তৃতীয় শক্তি নাই। আপনারা যদি গণশক্তি হওয়ার চেষ্টা করেন তাহলে “অটোমেটিক” ক্ষমতায় যাবেন। জনগণই ক্ষমতায় বসাবে। এ জন্য কাজ করতে হবে।’

এবি পার্টির সদস্যসচিব মুজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে এমন কোনো রাষ্ট্রনায়ক ছিলেন না, যাঁকে জোর করে ক্ষমতা থেকে নামাতে হয়নি। সরকারকে সরাতে হলে সামগ্রিক ঐক্য দরকার।

অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের উদ্দেশে মুজিবুর বলেন, ‘আমরা যারা হাসিনাকে স্বৈরতান্ত্রিক বলছি, আমরা কি গণতান্ত্রিক? অগণতান্ত্রিক মানসিকতা দিয়ে শেখ হাসিনাকে উৎখাত করা যাবে না। তাই আগে নিজেদের গণতান্ত্রিক হতে হবে।’

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য আশরাফ আলী আকন্দ বলেন, চলমান রাজনৈতিক সংকট উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া। এই সংকটের জন্য সরকারি দলের পাশাপাশি বিরোধী দলগুলো দায়ী। ‌ তিনি বলেন, দুর্নীতিবাজদের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। তাহলে এই সংকট কমবে।

 



এ সংবাদটি 26345 বার পড়া হয়েছে.
শেয়ার করুন




bdnewslive24.com

অস্থায়ী অফিসঃ বন্ধন বি- এয়ারপোর্ট-রোড, আম্বরখানা সিলেট।

ই-মেইলঃ admin@bdnewslive24.com

নিউজঃ 01737-969088

বিজ্ঞাপনঃ 01892-475100

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বে-আইনি।

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সাহেদ আহমদ।

 

প্রধান উপদেষ্টাঃ কবির উদ্দিন।

সম্মানিত উপদেষ্টাবৃন্দঃ এডভোকেট নাসির উদ্দিন খাঁন, মোহাম্মদ বাদশা গাজী, মোঃ ইসলাম উদ্দিন।

 

বিডি নিউজ লাইভ ২৪ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।  © ২০২১

          Design & Developed BY: Cloud Service BD